Goldfish এর ইতিহাস।

Goldfish এর scientific নাম হলো Carassius auratus।
এটা fresh পানিতে বসবাস করতে পারে, লবণাক্ত পানিতে এরা বেচে থাকতে পারে না।
এটি অ্যাকোয়ারিয়ামে রাখা মাছের মধ্যে সর্বাধিক জনপ্রিয় একটি মাছ।
সাধারণত Goldfish গুলো carp ফিশ প্রজাতির অপেক্ষাকৃত ছোট সদস্য বলে ধরা হয় (এতে Prussian carp এবং crucian carp ও রয়েছে )। Goldfish পূর্ব এশিয়ার স্থানীয় একটি মাছ। এক হাজার বছর আগে প্রাচীন চীনে প্রথমবারের মতো এই মাছ বেছে নেওয়া হয়েছিল এবং এর পরে বিভিন্ন স্বতন্ত্র জাতের বিকাশ হয়েছে। Goldfish এর জাত ব্যাধে, আকার, দেহের আকৃতি এবং রঙের ভিন্নতা পরিলক্ষিত হয় (সাদা, হলুদ, কমলা, লাল, বাদামী এবং কালো রঙের বিভিন্ন সমন্বযয়ে পরিচিত)।
প্রাচীন কাল থেকেই চীনে বিভিন্ন প্রজাতির কার্প (এশিয়ান কার্প নামে পরিচিত) পাওয়া যেত, প্রাচিন কাল থেকেই মানুষ খাদ্যের জন্য এই মাছের বাচ্চার প্রজনন ও লালন-পালন করে আসছে। এর মধ্যে কয়েকটি কার্প রৌপ্য প্রজাতির, যাদেকে লাল কমলা বা হলুদ বর্ণের পরিব্যক্তি উৎপাদন করার প্রবণতা রয়েছে; এটি প্রথম রেকর্ড করা হয় জিন রাজবংশের সময়ে (২৬৫–৪২০ খ্রি.)।
তাং রাজবংশের সময়ে (খ্রি ৬১৮-৯০৭) জলাশয় বাগান কে শোভাময় করার জন্য পুকুরে কার্প উৎপাদন বেশ জনপ্রিয় ছিল ।
একটি প্রাকৃতিক জেনেটিক রূপান্তর প্রক্রিয়ায় এই কার্প, রূপালী রঙের পরিবর্তে সোনার রঙ এ (প্রকৃত হলুদ কমলা) উৎপাদন করা হয়। শুরুর দিকে লোকেরা রৌপ্য জাতের পরিবর্তে সোনার জাতটি উৎপাদন করতে পুকুর বা অন্যান্য কোন জলাশয়ে রেখে উৎপাদন করতে উৎসাহিত হয়।
সং রাজবংশের (৯৬০–১২৭৯ খ্রিস্টাব্দ) দ্বারা Goldfish এর গৃহ প্রজনন (domestic breeding) দৃঢ়ভাবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। ১১৬২ সালে রাজবংশের সম্রাট, লাল এবং সোনার জাত সংগ্রহের জন্য একটি পুকুর তৈরির নির্দেশ দেন। এই সময়ের মধ্যে রাজকীয় পরিবারের বাইরের লোকেদের কাছে সোনার রঙ অর্থাৎ হলুদ জাতের Goldfish রাখতে নিষিদ্ধ ছিল, কেননা তখন হলুদ ছিল সাম্রাজ্যের রঙ । পরে জিনগতভাবে বংশবৃদ্ধি করা সহজ হলেও এই কারণেই সম্ভবত হলুদ Goldfish এর চেয়ে বেশি কমলা কালার Goldfish দেখা যায়।
অভিনব-লেজযুক্ত গোল্ডফিশের প্রথম ঘটনাটি মিং রাজবংশে শাসন কালে রেকর্ড করা হয়েছিল।
১৬০৩ সালের পরে ধীরে ধীরে বিশ্বময় Goldfish ছড়িয়ে যেতে থাকে ।
আকার ও আকৃতিঃ
২০০৮ সালের এপ্রিল মাসে বিবিসির প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনে বলা হয়ঃ নেদারল্যান্ডসের ১৯ ইঞ্চি (৪৮ সেমি) Goldfish বিশ্বের বৃহত্তম Goldfish।
সাধারণত Goldfish এর জাত ও স্থান এর ভিন্যতার কারনে আকার আকৃতির ভিন্যতা পাওয়া যায়।
দৃষ্টিশক্তিঃ
Goldfish এর ইন্দ্রিয়গুলির মধ্যহতে Most Inportent ইন্দ্রিয় হলো দৃষ্টিশক্তি।
Goldfish এ চার ধরণের Cone আকারে কোষ থাকে যা যথাক্রমে বিভিন্ন রঙ এ সংবেদনশীল: লাল, সবুজ, নীল এবং অতি বেগুনী আর Cone হলো এমন একটি ত্রি-মাত্রিক জ্যামিতিক আকার যা সমতল ভিত্তি থেকে শীর্ষ বিন্দুতে পর্যায়ক্রমে সংকচিত হতে থাকে। চারটি ভিন্ন প্রাথমিক রঙের মধ্যে পার্থক্য করার ক্ষমতা তাদের Tetrachromacy হিসেবে শ্রেণীবদ্ধ করে। Tetrachromacy হ’ল এমন রঙ যা তথ্য সরবরাহের জন্য চারটি স্বতন্ত্র চ্যানেল ধারণ করে।
শ্রবণশক্তিঃ
Goldfish ব্যুৎপত্তি জাতিও মাছ, তাই Weberian ossicles তাদের মধ্যে পাওয়া যায় যা সাঁতার মূত্রনালীর উপর শব্দ চাপ তরঙ্গ সরাসরি কানে শ্রবন করতে পারে। Weberian ossicles বলতে চারটি হাড়ের উপাদান কে বুঝায় যা সংবেদনশীল শ্রবণ বিসৃত ফ্রিকোয়েন্সি এর পরিসীমা প্রায় 60 dB তুলনামূলকভাবে কম সীমার দিকে নিয়ে যেতে পারে।
স্মৃতিশক্তিঃ
Goldfish এর শেখার ক্ষমতা খুবই শক্তিশালী । তাদের মধ্যে সামাজিক শিক্ষার দক্ষতাও দেখাযায়। তাদের চাক্ষুষ তীক্ষ্ণতা কারনে, স্বতন্ত্র মানুষের মধ্যে পার্থক্য করার ক্ষমতাও তাদের রয়েছে।
Goldfish এর স্মৃতিকাল কমপক্ষে তিন মাস থাকে এবং এটি বিভিন্ন আকার, রঙ এবং শব্দের মধ্যে পার্থক্য করতে পারে।
সাম্প্রতিক এক গবেষণায় দেখা গেছে এই স্মরণকাল ১২ দিন পর্যন্ত হতে পারে।
প্রজননঃ
Goldfish কেবলমাত্র পর্যাপ্ত জল এবং সঠিক পুষ্টিতে যৌন পরিপক্কতায় তার সংখ্যা বৃদ্ধি করতে পারে।
প্রায়শই বসন্তে এদের বেশী প্রজনন ঘটে।
বাজারঃ
বিভিন্ন প্রজাতি এবং অঞ্চল অনুযায়ী এর মূল্য বিভিন্ন রকম হয়ে থাকে।
বয়স কালঃ
সাধারণত Goldfish এর গড়আয়ু 10 – 15 বছর কিন্তু এর বেশী সময় ধরে ও বেঁচে থাকতে পারে যখন তাদের ভাল ভাবে রক্ষণাবেক্ষণ করা হয়।
সর্বনিম্ন ট্যাঙ্কের আকারঃ
জাতের ভিন্যতার কারনে ট্যাঙ্গের আকারও ভিন্য ভিন্য হয়ে থাকে।
তবে সাধারণত কিশোরদের জন্য ১০ গ্যালন, প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য ১৫ গ্যালন, প্রতি প্রাপ্ত বয়স্ক হিসাবে ১০ থেকে ১৫ গ্যালন যুক্ত করতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *